ডিসেম্বর থেকেই স্কুল চালুর পরিকল্পনা রাজ্য সরকারের

রাজ্য

ডিসেম্বর থেকেই চালু হচ্ছে স্কুল। আগামী ৫ নভেম্বর এই নিয়ে বৈঠক ডেকেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। স্কুল চালু করতে গেলে কি কি গাইডলাইন মানতে হবে সে বিষয়েই মূলত এই বৈঠক। একেকটি সেকশনে যেখানে ৫০ থেকে ৬০ জন পড়ুয়া পড়াশোনা করেন সেখানে সেই সেকশন গুলিকে ভেঙে দিয়ে একাধিক সেকশন ভাগ করা হবে বলে জানা গেছে। তার ফলে একেকটি ঘরে বা সেকশনে কুড়ির বেশি ছাত্র-ছাত্রী থাকবে না।
দেখে নেব এক নজরে গাইডলাইন

১) ছাত্র-ছাত্রীদের এ সেকশনে সংখ্যা বাড়িয়ে দেওয়া পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এর ফলে প্রত্যেকদিন ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুলে ডেকে ক্লাস করানো সম্ভব।

২) এক একটি ক্লাস রুমের আয়তন অনুযায়ী ছাত্র-ছাত্রীদের বসাতে হবে।
৩) প্রাথমিকভাবে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাস করানোর পরিকল্পনা নিচ্ছে রাজ্য। এর ফলে একই সঙ্গে বিভিন্ন স্কুলের একাধিক ক্লাসরুম ব্যবহার করা যাবে।ফলে ক্লাসরুম গুলিতে একসঙ্গে একাধিক ছাত্র-ছাত্রীর জমায়েত হবে না।

৪) স্কুলে শুধুমাত্র ক্লাসই হবে কোন রকম খেলাধুলা বা শরীরচর্চা আপাতত বন্ধ থাকবে।

৫) স্কুল ক্যাম্পাসে কোন রকম বন্ধুদের সঙ্গে জটলা করা যাবে না।

৬) নিয়মিত স্কুল কর্তৃপক্ষকে বাথরুম পরিষ্কার করতে হবে।

৭) ছাত্র-ছাত্রীদের মাস্ক-স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে।

৮) ক্লাসরুমে স্যানিটাইজার রাখতে হবে।

৯) কোনও ছাত্র বা ছাত্রী অসুস্থ বোধ করলে অভিভাবক অভিভাবিকাদের স্কুল কর্তৃপক্ষকে তা জানাতে হবে।

১০) সব সময় হাত পরিষ্কার রাখতে হবে পড়ুয়াদের।

যাবতীয় গাইডলাইন গুলি ঠিকভাবে মানা হচ্ছে নাকি তার ওপর নজরদারি করবেন সংশ্লিষ্ট স্কুলের প্রধান শিক্ষক। যদিও স্কুল চালুর ব্যাপারে আগামী বৃহস্পতিবারে মুখ্যমন্ত্রীর ডাকা এই বৈঠক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে বলেই মনে করছেন দপ্তরের আধিকারিকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *