বিজেপির থানা ঘেরাও কর্মসূচি

রাজনীতি রাজ্য

রবিবার সকালে নদিয়ার গয়েশপুরে গাছ থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় বিজেপি কর্মী বিজয় শীলের দেহ। এই ঘটনায় হত্যাকারীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে সারা বাংলা জুড়ে সোমবার ভারতীয় জনতা পার্টির পক্ষ থেকে থানায় বিক্ষোভ কর্মসূচি গ্রহন করা হয়। পাশাপাশি কল্যাণীতে বারো ঘণ্টার বনধ ডাকা হয়। সকাল ১১ থেকে কোলাঘাট থানাতে এই বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হল। উপস্থিত ছিলেন বিজেপি নেতা বামদেব গুছাইত,জেলার বিজেপি নেতৃত্ব দেবব্রত পাট্টনায়েক,সাদ্দাম হোসেন সহ একাধিক নেতৃত্বরা।এদিকে বিরোধীদের উপর আক্রমন চালাচ্ছে সরকার এই অভিযোগ তুলে মগড়া থানা ঘেরাও করে বিজেপি। বিজেপি নেতা কল্যান বোলেল ও রাজ্য যুব মোর্চার সদস্যর নেতৃত্বে স্মারকলিপী প্রদান করা হয়। সারা জেলার বিভিন্ন জায়গা সাথে খড়গ্রামে অবস্থান বিক্ষোভ পালন করে বিজেপি কর্মীরা। দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে এই বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয় পাশাপাশি খড়গ্রাম থানায় বিজেপি পক্ষ থেকে একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এদিনের এই কর্মসূচিতে বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়। পাশাপাশি ডায়মন্ড হারবার সাংগাঠনিক জেলার পক্ষ থেকে ডায়মন্ড হারবারের ৭ বিধানসভা থেকে শান্তিপূর্ন ভাবে বিজেপি কর্মীরা ডেপুটেশন জমা দেয়। পূর্ব মেদিনীপুর এর তমলুক সাংগঠনিক জেলা বিজেপির উদ্যোগে তমলুক থানা ঘেরাও কর্মসূচির সময় পুলিশের সঙ্গে ধ্বস্তাধস্তি বিজেপি কর্মীদের। তমলুক সাংগঠনিক জেলা সভাপতি নবারুণ নায়েক এর নেতৃত্বে থানা ঘেরাও কর্মসূচি হয়।দলীয় কর্মীর মৃত্যুতে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বিজেপির থানা ঘেরাও কর্মসুচী ঘিরে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। আগামী বৃহস্পতিবার রাজ্যে অমিত শাহ আসার আগে এই ইস্যুতে যে বিজেপি নতুন করে সুর চড়াবে,তেমনই ধারণা ছিল রাজনৈতিক মহলের একাংশের।
ব্যুরো রিপোর্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *