বারাসাত হসপিটালের শিব রাত্রি র দিন স্থাপিত হল মহাদেবর মান্দির ।

0
9

বারাসাত হসপিটালের ঈশান কোনে একাধিক যুগ ধরে আছে একটি সুন্দর বট গাছ। তার কোলে বসে মহাদেব শিব,  প্রত্যহ মানুষ তার পুজো করেছেন মনের মতন করে। শুধু তাই নয়, পথ চলতি সব মানুষের জন্য একটা শান্তির জায়গা এই গাছটি।   বারাসাতে মেডিক্যাল কলেজ হচ্ছে সেই উদ্দেশ্যে  বিল্ডার ব্লু প্রিন্ট বানিয়েছেন  একটা, যেটা অনুযায়ী ওই গাছটি তারা কাটছে!

এরপর ঘটনা অনেক দুর গড়িয়েছে,  সেই বিল্ডার কাঠুরিয়া দল এনে হাজির হতেই,  তার গাছের পাসের গর্তে পড়ে গুরুতর আঘাত লাগে,  সে বারাসাত হসপিটালে এখন অসুস্থ হওয়ার ভর্তি,  এর পড়ে তার কাঠুরিয়া দল গাছটি কাটতে গেলে, তাদেরকে তিনটি সাপ তারা করে,  তারপর তার কাঠুরিয়া দল’ও অসুস্থ হওয়ায় সাময়িক ভাবে গাছ কাটা স্থগিত হয়ে।

shiv barasat hospital
এরপর ঘটনা তে নতুন মোর আনেন অসুস্থ বিল্ডার,  সে বলে আমি সপ্ন দেখেছি, – ” মহাদেব আমায় বলেছেন হসপিটালের এরিয়া তেই আমায় জায়গা দিতে হবে, তবেই আমি কাটতে দেব “।

সে বারাসাত মর্গের পাশে , (হাসপাতালের উঃপঃ কোন)  একটি মার্বেল এর মন্দির রাতারাতি বানিয়ে ফেললেন,  সেখানেই এক পৌরহিতকে দিয়ে  এদিন, মহা শিব রাত্রী তে সেই বটতলার শিবলিঙ্গ তুলে নিয়ে আসেন,  আর সেই বট গাছের  একটি ছোট্ট ডাল এনে একটি টবে মার্বেলের মন্দিরে সিড়ির উপরে রেখেছেন।
ওই এলাকার কয়েকটি বাসিন্দারা আজ সন্ধেবেলা সেখানেই শিবরাত্রি পুজো সম্পন্ন করেন।
বিল্ডারের উদ্দেশ্য এই আগামি রবিবার গাছটিকে নির্মূল করবেই। এই হলো গাছটির বর্তমান অবস্থা।
একটি বটবৃক্ষ একশো প্রকার প্রাণীর বাসস্থান, তাছাড়া একটি মেডিক্যাল কলেজ এর ভিতর একটি সুন্দর গাছ থাকতে পারে, এতে কারোই অসুবিধে হবেনা এমনি কথা বলছেন  স্হানীয় বাসিন্দাদের ।

বারাসাত হসপিটালের ঈশান কোনে একাধিক যুগ ধরে আছে একটি সুন্দর বট গাছ। তার কোলে বসে মহাদেব শিব,  প্রত্যহ মানুষ তার পুজো করেছেন মনের মতন করে। শুধু তাই নয়, পথ চলতি সব মানুষের জন্য একটা শান্তির জায়গা এই গাছটি।   বারাসাতে মেডিক্যাল কলেজ হচ্ছে সেই উদ্দেশ্যে  বিল্ডার ব্লু প্রিন্ট বানিয়েছেন  একটা, যেটা অনুযায়ী ওই গাছটি তারা কাটছে!

এরপর ঘটনা অনেক দুর গড়িয়েছে,  সেই বিল্ডার কাঠুরিয়া দল এনে হাজির হতেই,  তার গাছের পাসের গর্তে পড়ে গুরুতর আঘাত লাগে,  সে বারাসাত হসপিটালে এখন অসুস্থ হওয়ার ভর্তি,  এর পড়ে তার কাঠুরিয়া দল গাছটি কাটতে গেলে, তাদেরকে তিনটি সাপ তারা করে,  তারপর তার কাঠুরিয়া দল’ও অসুস্থ হওয়ায় সাময়িক ভাবে গাছ কাটা স্থগিত হয়ে।
এরপর ঘটনা তে নতুন মোর আনেন অসুস্থ বিল্ডার,  সে বলে আমি সপ্ন দেখেছি, – ” মহাদেব আমায় বলেছেন হসপিটালের এরিয়া তেই আমায় জায়গা দিতে হবে, তবেই আমি কাটতে দেব “।

সে বারাসাত মর্গের পাশে , (হাসপাতালের উঃপঃ কোন)  একটি মার্বেল এর মন্দির রাতারাতি বানিয়ে ফেললেন,  সেখানেই এক পৌরহিতকে দিয়ে  এদিন, মহা শিব রাত্রী তে সেই বটতলার শিবলিঙ্গ তুলে নিয়ে আসেন,  আর সেই বট গাছের  একটি ছোট্ট ডাল এনে একটি টবে মার্বেলের মন্দিরে সিড়ির উপরে রেখেছেন।
ওই এলাকার কয়েকটি বাসিন্দারা আজ সন্ধেবেলা সেখানেই বারাসাত হসপিটালের পুজো সম্পন্ন করেন।
বিল্ডারের উদ্দেশ্য এই আগামি রবিবার গাছটিকে নির্মূল করবেই। এই হলো গাছটির বর্তমান অবস্থা।
একটি বটবৃক্ষ একশো প্রকার প্রাণীর বাসস্থান, তাছাড়া একটি মেডিক্যাল কলেজ এর ভিতর একটি সুন্দর গাছ থাকতে পারে, এতে কারোই অসুবিধে হবেনা এমনি কথা বলছেন  স্হানীয় বাসিন্দাদের ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here