লক ডাউনে সংগীতশিল্পীরা চরম সংকটে

0
1

জন্মদিন, শুভ বিবাহ, সকল আনন্দ অনুষ্ঠানে যারা অফুরন্ত আনন্দ দিয়ে থাকেন গান বাজনার মাধ্যমে, আজ তারা অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে দিন কাটাচ্ছেন। শিল্পী মালি অভাবী, অথচ তাদের বেশভূষা চলন বলনে কখনো প্রকাশিত হয় না একথা। সরকারি সহযোগিতা তো দূরের কথা! বিভিন্ন ক্লাব সংস্থার সহযোগিতা ও মেলে না শুধু এই কারণে। আবার লকডাউন উঠে গেলেই যে মিলবে সুরাহা এমনটা মনে করেন না শিল্পীরা। ছোট বড় মাঝারি ব্যবসার পরিস্থিতি এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে, যে আগামী দু এক বছরেও ঘাটতি পূরণ হবে না। তাই সাধারণ মানুষের আনন্দ-উচ্ছ্বাস আসবে কোথা থেকে? বহু অভাবের মধ্যে দিয়েও, সংসারের খরচ বাঁচিয়ে বাদ্যযন্ত্র কিনে সারাবছর অনুশীলন চালিয়ে যান পরিবারের আর্থিক অনুদানকে উপেক্ষা করেও। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তথ্য সংস্কৃতি বিভাগ থেকে বাউল শিল্পী, শ্রীখোল, একতারা, হারমোনিয়াম সহ কয়েকটি বিষয়ের শিল্পীরা মাসে ১০০০ টাকা ভাতা ও বিভিন্ন সরকারি অনুষ্ঠানের সুযোগ পান। কিন্তু গিটার, হ্যান্ডসনিক, কিবোর্ড, ঢোল কঙ্গ, স্যাক্সোফোন, বাঁশি, অক্টোপ্যাড বিভিন্ন যথেষ্ট খরচসাপেক্ষ বাদ্যযন্ত্র কেনার সামর্থ্য থাকে না বহু শিল্পীরই, তবুও শুধুমাত্র ভালোবেসেই গান পাগল এই মানুষগুলো আজ সরকারি সহযোগিতার প্রতীক্ষায় দিন গুনছেন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here