কুলপিতে ত্রিপল বিলিকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ দুই গোষ্ঠীর

0
0

ত্রিপল বিলিকে কেন্দ্র করে এক পক্ষকে এলোপাতাড়ি মারার ও ঘর ভাঙচুর এর অভিযোগ উঠল অপর পক্ষের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় কুলপি থানার বেলপুকুর গ্রাম পঞ্চায়েতের রাঙ্গাফলা গ্রামে। ঘটনায় আহত হয়েছেন পাঁচজন, তার মধ্যে একজন ডায়মন্ডহারবার মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এবং আরেকজন গুরুতর অবস্থায় কলকাতার পিজি হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন। আহত ব্যক্তির পরিবারের পক্ষ থেকে কুল্পি থানায় একটি লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের পুলিশি হেফাজতে রাখা হয়। জানা যায়, আইসিইউ তে থাকা বছর ৩৫ এর আব্দুর সালাম গাজী মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। স্থানীয় সূত্রে খবর, পূর্ব আক্রোশে এদিন ত্রিপল বিলিকে কেন্দ্র করে এই ঘটনা ঘটে। আহতদের পরিবার সূত্রে জানা যায়, এদিন এই গ্রামে আমফানের ত্রাণস্বরূপ ত্রিপল বিতরণ করা হচ্ছিল। কিন্তু এমন কয়েকজন পরিবারকে ত্রিপল দেওয়া হয় যাদের ছাদ সহ বিশেষ পাকা বাড়ি রয়েছে। আর এই কথা বলাতেই এক পক্ষ চড়াও হয়। বাঁধে তুমুল তর্কাতর্কি। কিছুক্ষণের মধ্যেই পরিকল্পিতভাবে অতর্কিত হামলা করে এবং ঘরবাড়ি ভাঙচুর করা হয়। ফলে পাঁচজন আহত হয়, তার মধ্যে দুজনের অবস্থা গুরুতর। আহত ব্যক্তিকে মোটর বাইকে করে বেলপুকুর হাসপাতালে পৌঁছে দেওয়ার জন্য এক ব্যক্তিকে রাস্তায় ফেলে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। এই ঘটনার ইন্ধন যুগিয়েছে বেলপুকুর অঞ্চল নেতৃত্ব নারায়ন চন্দ্র ভৌমিক। এমনই প্রশ্ন ওঠাতে নারায়ণ বাবুর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমফানের ফলে ওই এলাকায় প্রচুর ক্ষতি হয় তাই কলকাতার একটি এনজিও এবং বেলপুকুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সহযোগিতায় প্রায় ৯০০-র বেশি ত্রিপল নিয়ে আমরা ওখানে বিতরণ করতে যাই। সেখানে কুলপি ব্লক ও থানা আধিকারীক, বিধায়ক সহ বেলপুকুর অঞ্চল নেতৃত্বরাও উপস্থিত ছিলেন। বিতরণ কার্য শুরু করেই আমরা চলে আসি। তারপর খবর পাই ওখানে একটা ঝামেলা হয়েছে। তিনি এও বলেন যে, এই ঝামেলা কোন রাজনৈতিক বা ত্রিপল কেন্দ্রিক নয়, এটা অন্য কোনো ইস্যু হতে পারে। তবে এই মারামারি খুনোখুনি কে আমি ধিক্কার জানাই। সেই সাথে অসুস্থ ব্যক্তিদের সুস্থতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করি। প্রকাশ্য দিবালোকে এরকম ঘটনাকে ঘিরে এলাকায় রয়েছে থমথমে পরিস্থিতি। দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলা জাতীয় কংগ্রেস সভাপতি তথা মথুরাপুর লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী কৃত্তিবাস সরদার এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান, এটা তৃণমূল বনাম যুব তৃনমূলের লড়াই। এই লড়াই তো সর্বত্র। আর এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলেই এ ধরনের ঘটনা অহরহ ঘটছে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here