রসুনের মধ্যে লুকিয়ে থাকা অজানা কিছু ঔষধিগুণ

স্বাস্থ্য

আমরা সকলেই জানি যে ভারতীয় খাদ্য উপকরণ গুলির মধ্যে রসুন অত্যন্ত জনপ্রিয়। কিন্তু এই রসুনের মধ্যেই লুকিয়ে রয়েছে কিছু অমৃতগুন।
রসুন বাড়তি ওজন রোধ করতে বেশ কিছুটা সহায়তা করে। যাঁরা অতিরিক্ত স্থূলতা রোধ করতে চান তাঁরা নিজেদের ডায়েটে কাঁচা রসুন যোগ করতে পারেন। রসুন উচ্চ রক্তচাপ এবং কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে থাকে।
হার্ট ভালো রাখতেও নিজেদের খাদ্যতালিকায় রসুন অন্তর্ভুক্ত করলে ভালো কাজ হয়। ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগীদের প্রায় ২ সপ্তাহ রসুন খাওয়ানো হলে সুগার নিয়ন্ত্রিত হয়। এবং রসুনের আ্যন্টি ডায়বেটিস গুণগুলি ডায়বেটিসের ঝুঁকিও হ্রাস করে। হাঁপানিতেও রসুন উপকারিতা দেয় তবে এলার্জির সমস্যা থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া প্রয়োজন। সর্দি বা জ্বর থাকলেও সেই সমস্যাও কমে যায়। অ্যালিসিন রসুন গ্রহণের ফলে ঠান্ডাসর্দি জনিত ঝুঁকি হ্রাস পায় এবং প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতেও তা সাহায্য করে।
কাঁচা রসুন সেবন করলে শরীরের ক্যালসিয়াম শোষণ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে ফলে অস্ট্রিয়পোরোসিস থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এ ছাড়া রসুনে থাকা সালফার আর্থ্রাইটিক হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস পেতে সাহায্য করে। লিভারের প্রদাহ কমাতে সামান্য পরিমাণ রসুনের কুঁড়ি খেলে উপকার পাওয়া যায়। ফ্যাটি লিভারের চিকিৎসায় রসুন সহায়ক, এ ছাড়াও যে কোনো ধরনের লিভারের আঘাত থেকে রক্ষা করে রসুন।
গর্ভাবস্থায় সীমিত পরিমাণ রসুন খাদ্য তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা উচিত, তবে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়েই। রসুন কিডনিতে সংক্রমণ রোধ এবং কিডনি সমস্যার ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। অন্ত্রের ক্ষুদ্র ক্ষয় রোধ করতে রসুন সাহায্য করে। বাচ্চাদের কানে সাধারণ হালকা সংক্রমণ বা ব্যথা উপশম করতে রসুন কার্যকর। অকসডিটিভ স্ট্রেসের কারণে দেহে ডায়বেটিস, হৃদরোগের মতো অনেক গুলি সমস্যা হতে পারে। রসুন স্ট্রেস বা চাপ কমিয়ে দেহকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। তাই নিত্য দিনের খাদ্যাভ্যাসে রসুন থাকা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *