‘বিনামূল্যের বাজার’ ফুলিয়া আদিবাসী প্রাইমারি স্কুল প্রাঙ্গণে

জেলা রাজ্য

নদীয়া জেলার শান্তিপুর ব্লকের ফুলিয়া আদিবাসী প্রাইমারি স্কুল প্রাঙ্গণে “বসেছিল বিনামূল্যের বাজার”। এসটি, এসসি, ওবিসি সেলের জেলার দায়িত্বে থাকা সৈকত দাস যোগাযোগ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রীর সমস্ত অনুগামীদের সাথে। গ্রাম পঞ্চায়েত সমিতি, জেলা পরিষদের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, দলীয় বিভিন্ন সংগঠনের দায়িত্বে থাকা নেতাকর্মীদের এমনকি রাজনীতিতে যুক্ত নয় অথচ মুখ্যমন্ত্রীর অনুগামী। বুঁইচা আদিবাসী প্রাইমারি স্কুলের ফাঁকা মাঠে এদিন প্রায় কুড়িটি টেবিলে বিভিন্ন কাঁচা সবজি ও খাদ্য দ্রব্য নিয়ে বিশিষ্টজনেরা করজোড়ে অনুরোধ করছিলেন তা গ্রহণ করার জন্য। উদ্যোক্তাদের কথা অনুযায়ী দান বা সহযোগিতা কোনটাই নয় , টেবিলের উপর রাখা খাদ্যদ্রব্য নিজে হাতে তুলে নেওয়ার অর্থই হলো “ক্ষুধার্ত অবস্থায়ও অন্য আর পাঁচজন ক্ষুদার্তর কথা ভেবে নিজেকে নিয়ন্ত্রণ রাখার মানবিক চেতনা বৃদ্ধি”। এদিনের বিনামূল্যে বাজারে সমগ্র ফুলিয়ার প্রায় ১০০০ জন পারস্পরিক দূরত্ব বজায় রেখে, হাত স্যানিটাইজ করে প্রয়োজনীয় এক সপ্তাহের খাদ্যদ্রব্য নিয়ে বাড়ি ফিরে অনেকটাই চিন্তামুক্ত এমনটাই জানান উপস্থিত গ্রহীতারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *