বহিরাগত রোগী করোনায় আক্রান্ত, চাঞ্চল্য বেলপুকুর এলাকায়

জেলা রাজ্য

দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলপি ব্লকের বেলপুকুর গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক বহিরাগত রোগীর দেহে মেলে করোণা সংক্রমণ, পরবর্তীতে মারাও যান তিনি। এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। সাংঘাতিক প্রভাব পড়ে বেলপুকুর বাজার ও স্থানীয়দের উপর। তথ্য গোপনের অভিযোগ ওঠে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। সূত্র মারফত জানা যায়, বেলপুকুর হাসপাতালে কর্মরত এক ডাক্তারের নিকট আত্মীয় অ্যাজমা, ডায়াবেটিস এবং হার্টের রোগীকে হাসপাতালের কোয়ার্টারে রেখে চিকিৎসা করাতেন। রোগীর অবস্থার অবনতি দেখে গত সোমবার বেলপুকুর হাসপাতাল ইনচার্জ ডাক্তার শান্তনু সাহা ডায়মন্ড হারবার মহকুমা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন, সেখানে ভর্তি না নেওয়ার জন্য রোগীকে কলকাতায় নিয়ে যাওয়া হয়। এবং সেখানে ওই রোগীর লালা রস পরীক্ষা করতে পাঠানো হয়। কিন্তু পরের দিন অর্থাৎ মঙ্গলবার রোগীটি মারা যায় বলে জানা যায়। এবং বুধবার তার করোণা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। পুরো ব্যাপারটি গোপন রেখে ইনচার্জ শান্তনু বাবু হাসপাতালের কর্মীদের নির্দেশ দেন, অনির্দিষ্টকালের জন্য হাসপাতাল বন্ধ রাখতে। সেই মতে তারা দেওয়ালে একটি নোটিশ দিয়ে গেটে তালা মেরে দেয়। তবে এ বিষয়ে বেলপুকুর হাসপাতাল ইনচার্জ ডাক্তার শান্তনু সাহাকে টেলিফোনে এই ঘটনার সত্যতা জানতে চাইলে তিনি তীব্র বিরক্তি প্রকাশ করে এই ঘটনা অস্বীকার করেন। বেলপুকুর স্বাস্থ্য কেন্দ্রের রোগী কল্যাণ সমিতির বিধায়কের প্রতিনিধি নারায়ণ চন্দ্র ভৌমিক ডাক্তারবাবুদের এই পদক্ষেপকে নিন্দা করেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *