ধসে তলিয়ে যাওযায় ৩০ ঘণ্টা পর মৃত্যু মহিলার

জেলা রাজ্য

ভূমি টিভি ডেস্ক : মধ্যরাতে পশ্চিম বর্ধমানের অন্ডালের কোলিয়ারিতে ধস। বছর এর এক মহিলাকে নিয়ে গর্তে তলিয়ে গেল দু’কামরার একটি বাড়ি । মাটির তলায় ঢুকে গেল একের পর এক পাঁচটি বাড়ি। স্থানীয়দের দাবি রাতে ঘুমের মধ্যেই মৃত্যু হয়েছে এক মহিলার । বিগত কয়েক বছর ধরে পুনর্বাসনের দাবি জানিয়ে আসছেন আবাসিকরা। কিন্তু ইসিএল কর্তৃপক্ষের গাফিলতিতে এখনও হয়নি পুনর্বাসন। ফলে চরম ক্ষতির সম্মুখীন প্রায় ২০টি পরিবার। পরিত্যক্ত আবাসনে আপাতত ১৬টি পরিবার বাস করছে। ভূপৃষ্ঠ থেকে ৫০ ফুট নিচে বাড়িগুলি তলিয়ে গিয়েছে বলে অনুমান ইসিএলের ।

গাড়ির যন্ত্রাংশ মিস্ত্রি মিরাজ শেখ জানান , “ঘরে তিনি ও তার স্ত্রী শাহানাজ বেগম ঘুমাচ্ছিলেন । রাত দুটো নাগাদ বাড়ি কেঁপে ওঠে । সঙ্গে সঙ্গে বিকট শব্দ । মিরাজ বাইরে বেরোলো আটকে পড়েন শাহনাজ ।মিরাজের কথায় নিমেষে শাহনাজকে নিয়ে বাড়িটা তলিয়ে গেল । এছাড়াও পাশে স্বপন ঘোষ এর ভাতের হোটেল ও আরেকটি বাড়িও তলিয়ে যায় । সেই সময় হোটেলে কেউ ছিলেন না । শনিবার সকালে ঘটনাস্থলে তৃণমূল বিধায়ক জিতেন্দ্র তিওয়ারি গেলে উদ্ধারকার্য কেন শুরু হয়নি সে প্রশ্ন তোলেন স্থানীয় বাসিন্দারা । বেলা ১১ টা নাগাদ উদ্ধারকার্য শুরু করে ইসিএল ।

একজন ইসিএল কর্তা দাবি করেন , নিয়ম অনুযায়ী তাদের উদ্ধারকার্য করার কথা নয় । মানবিকতার খাতিরে করা হচ্ছে । যখন প্রক্রিয়া মেনে খবর এসেছে তখনই উদ্ধারকার্য শুরু হয়েছে । তারা সংযোজন এলাকাটিতে জামবাদ খোলামুখ খনির সম্প্রসারণ করে । ওখানে থাকা যে নিরাপদ নয় তা আগেই জানানো হয়েছে বাসিন্দাদের । ইসিএল কর্তৃপক্ষের কাছে পুনর্বাসনের দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। এলাকায় ২৪০ টি বাড়ি রয়েছে, যতক্ষণ না পুনর্বাসনের আশ্বাস মিলছে, ততক্ষণ দেহ আটকে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *