কম খরচে করোনা টেস্টিং কিট উৎপাদন করল জিসিসি বায়োটেক সংস্থা

জেলা রাজ্য

দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা তথা পশ্চিমবঙ্গে এই প্রথম এত সস্তায় করোনা টেস্টিং কিট উৎপাদন করছে বাখরাহাটের জিসিসি বায়োটেক সংস্থা। দক্ষিণ ২৪ পরগণার এই সংস্থা সবচেয়ে কম খরচে কিট বানিয়ে ফেলেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা তথা WHO এই কিট জিসিসি বায়োটেকের কাছ থেকে নিয়েছে। মাত্র ৫০০ টাকায় ৯০ মিনিটের মধ্যে এই কিট বলে দিতে পারে কেউ কারোনা পজিটিভ কিনা। দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাখরাহাটে ICMR এর অনুমোদিত জিসিসি বায়োটেক এই সাফল্য পেয়েছে গত দুই মাসের অক্লান্ত প্রচেষ্টায়। এই কাজে ICMR এর প্রাক্তন বিজ্ঞানী অধ্যাপক সমিত আঢ্য, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োটেকনোলজির অধ্যাপক কৌস্তুভ পান্ডা সহ একদল বিজ্ঞানী প্রায় দু মাসের পরিশ্রমে এই সাফল্য পান বলে জানিয়েছেন। চলতি মাসের শুরুতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক স্বীকৃতি দেয়। কেন্দ্রীয় সরকার ছাড়াও অসম, মহারাষ্ট্র, উড়িষ্যা সহ বিভিন্ন রাজ্য এই কিট নিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এই যুগান্তকারী আবিষ্কারের জন্য সংস্থার গবেষকদের অভিনন্দন জানিয়েছেন। এত সস্তায় কিভাবে এই কিট বানানো সম্ভব হল? এই প্রশ্নের উত্তরে আবিষ্কারক দলের অন্যতম অধ্যাপক কৌস্তুভ বলেন, কিটের প্রত্যেকটি কাঁচামাল দেশীয়। বাইরে থেকে আমদানি করতে হয়নি। সমস্ত সামগ্রী আমরা বাংলার গবেষণাগারে তৈরি করেছি। তার ফলেই এত কম খরচে পরীক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে। জিসিসি বায়োটেক আমাদের জানিয়েছে এখন তারা প্রতি মাসে ১ কোটি কিট উৎপাদনের কাজ চালাচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকার চাইলে দ্বিগুণ উৎপাদন করা যেতে পারে। তবে ভিন রাজ্য থেকে এই কিট নিয়ে গেলেও এখনো পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গ সরকার এই সংস্থার সাথে যোগাযোগ করেনি। এ প্রসঙ্গে সংস্থার অধিকর্তা আমাদের জানান, রাজ্য সরকারের সাথে আমাদের সম্পর্ক খুব ভালো। তাই তারা খুব আশাবাদী যে খুব শীঘ্রই স্বাস্থ্য ভবনের তরফ থেকে তাদের সাথে যোগাযোগ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *