ঋন পরিশোধের চাপে আত্মঘাতী এক যুবক

জেলা রাজ্য

সময়মত ধার পরিশোধ করতে না পারায় আত্মঘাতী হন বারাসাতের প্রমোদ নগরের ভজন বিশ্বাস। পরিবার সূত্রে খবর, লক ডাউনের আগে ৩৫ হাজার টাকা ধার নিয়ে ছিলেন তিনি, এক সুদ মহাজনের কাছ থেকে।কিন্তু লক ডাউন শুরু হওয়ার কিছুদিন পরই কাজ হারায় সে। ভজন বিশ্বাস পেশায় ছিলেন মেডিক্যাল রিপ্রেজেনটেটিভ। টাকা ধার করার জন্য তাকে দৈনিক ৪৫০ টাকা সুদ দিতে হত। জানা গেছে ধার শোধ করার জন্য ক্রমশ সুদ মহাজনেরা টাইসন , যুগোল, প্রবীররা চাপ দিতেন তাকে। এমনকি সুদ ও আসল শোধ করতে না পারায় তার সাইকেল স্কুটি মোবাইলটিও নিয়ে নেয়। পরিস্থিতির চাপে পড়ে অবশেষে ২৩ শে আগষ্ট আত্মহত্যার পথ বেছে নেন ভজন বিশ্বাস। তবে আত্মহত্যার কারণ তিনি একটি সুইসাইড নোটে লিখে যান। পরিবার পুলিশের কাছে এই তিন জনের বিরুদ্ধে বারাসত থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।পরিবারের দাবী লক ডাউনে কাজ না হারালে ভজন ঋনের টাকা সুদে আসলে শোধ করে দিত। কিন্তু এই মহাজনের অত্যাচার তাকে বাঁচতে দিল না। পুলিশ ওই তিন অভিযুক্তকে আটক করেছে।মঙ্গলবার সকালে তাদের বারাসাত জেলা আদালতে তোলা হয়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *